প্রচ্ছদ অন্যান্য পৃষ্ঠা ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত গোমস্তাপুরের কিন্ডারগার্টেনের ৪ শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী

ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত গোমস্তাপুরের কিন্ডারগার্টেনের ৪ শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী

472
0

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বিভিন্ন কিন্ডারগার্টেন (কেজি) স্কুলগুলো বর্তমানে করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘ প্রায় ১৫ মাস থেকে বন্ধ থাকার কারণে এবারেও ঈদ আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ৪ শতাধিক শিক্ষক-কর্মচারী। করোনার কারণে স্কুলগুলো ছাত্র-ছাত্রীদের নিকট থেকে কোন বেতন আদায় করতে পারছেনা। উপজেলার কেজি স্কুলগুলো ছাত্র-ছাত্রীদের বেতনের উপর নির্ভর করে নিজেদের বেতন ভাতাসহ অন্যান্য কাজকর্ম পরিচালিত করে থাকে। বেতন আদায় না হওয়ার ফলে গত ২০২০ সালে মার্চ মাসের ১৬ তারিখ থেকে শিক্ষক-কর্মচারীগণ বেতন-ভাতা থেকে বঞ্চিত। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘর ভাড়া পর্যন্ত দিতে পারছেনা। ইতিমধ্যেই অনেক শিক্ষক-কর্মচারী পেটের তাগিদে অন্য পেশায় জড়িয়ে পড়েছেন। অত্র উপজেলায় ৩০ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৪০০ জন শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছেন এবং ৭ হাজার ছাত্র-ছাত্রী প্লে শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত অধ্যয়নরত। সাধারণত সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর চেয়ে কেজি স্কুল সমূহের ছাত্র-ছাত্রীরা ভাল ফলাফল করে থাকে। বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশন গোমস্তাপুর উপজেলার সভাপতি ও আলিনগর নুরজাহান প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব সাদিকুল ইসলাম বলেন, স্কুল বন্ধ ও ছাত্র-ছাত্রীদের বেতন আদায় না হওয়ার কারণে শিক্ষক-কর্মচারীদের জীবন যাত্রার মান একেবারে তলানিতে নেমে গেছে। এসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক ও ঘোলাদিঘী ব্রাইট স্টার কিন্ডারগার্টেনের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম জানান, গত বছর জুন মাসে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদন করা হয়েছিল এবং ২০২০ সালের জুলাই মাসে সারাদেশে মানববন্ধনও করা হয়েছিল। বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে উপজেলা চত্ত্বরের পাশে অবস্থিত রহনপুর গাজী শিশু শিক্ষা নিকেতনের অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন রনি জানান, বর্তমান অবস্থায় সরকারের নিকট থেকে আর্থিক প্রণোদনা পেলে শিক্ষক-কর্মচারীগণ তাদের পরিবার পরিজনের পাশে দাড়াতে পারতো। রহনপুর তোজাম্মেল হোসেন একাডেমির প্রধান শিক্ষক সালেহ আহমেদ বাচ্চু সরকারের শুভদৃষ্টি কামনা করেন। শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য আর্থিক প্রণোদনা চেয়ে একই কথা বলেন, রহনপুর গ্রীন ভিউ প্রি-ক্যাডেট স্কুলের অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ, জ্ঞাণচক্র একাডেমির পরিচালক সারোয়ার হাবিব। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, গোমস্তাপুর, মোঃ মিজানুর রহমান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান কিন্ডার গার্ডেন স্কুল গুলোর ব্যপারে কোন সরকারি নির্দেশনা নেই, তবে কোন শিক্ষক-কর্মচারী একান্তই আর্থিক দৈন্যতায় ভুগলে তাকে সহযোগীতা করা হবে। একই বিষয়ে জেলা প্রশাসক, মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান কিন্ডার গার্ডেন এর শিক্ষক-কর্মচারীদের ব্যাপারে রাষ্টীয় ভাবে কোন নির্দেশনা নেই তবে কোন মানবেতর জীবন যাপনকারী শিক্ষক-কর্মচারী আমার বরাবর আবেদন করলে সহযোগীতা করা হবে বলে জানান।