প্রচ্ছদ অপরাধ তানোরে পৌর এলাকায় মসজিদে পানির পাম্প স্থাপনের সময় মালামাল জব্দ 

তানোরে পৌর এলাকায় মসজিদে পানির পাম্প স্থাপনের সময় মালামাল জব্দ 

242
0
সাইদ সাজু তানোর থেকে : রাজশাহীর তানোর পৌর এলাকার আকচা বানিয়া পাড়া মসজিদের পানির পাম্প স্থাপনের সময় মালামাল জব্দ করা হয়েছে।
সোমবার সকালে তানোর পৌর নির্বাচনে অংশ গ্রহনকারী বিএনপির ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মিজানুর রহমান মিজানের মামা তানোর পৌর বিএনপির আহবায়ক একরাম আলী মোল্লা আকচা বানিয়া পাড়া মসজিদে ওই পানির পাম্প (মটার) স্থাপনের জন্য অনুদান হিসেবে মিস্ত্রিসহ পাঠিয়েছিলেন।
সোমবার বেলা ১২ টার দিকে খবর পেয়ে তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও তানোর পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতো ঘটনাস্থলে গিয়ে পানির পাম্প স্থাপনের মালামার জব্দ করে নিয়ে আসেন।
সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও গ্রামবাসীরা বরেন, রোববার বিকালে ধানের শীষের মেয়র প্রার্থীসহ তার পক্ষে গনসংযোগে ওই গ্রামে গিয়ে মসজিদে পানির পাম্প মটার স্থাপনের আশ্বাষ দেন।
এরই প্রেক্ষিতে সোমবার সকাল তিনি মিস্ত্রিসহ পানির পাম্প (মটার) ট্যাংকিসহ সেখানে পাঠিয়ে স্থাপন করতে বলেন। এসময গ্রামের জনসাধারণ তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও তানোর পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতোকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি মটারসহ মালামার জব্দ করে আনেন।
গ্রামবাসীর অভিযোগ, গত ৫ বছর বর্তমান মেযর আসেননি এবং কোন ধরনের ইন্নয়ন বা জনগনের সাথে দেখা করেননি। নির্বাচনের আগ মুহুর্তে ভোট নেয়ার জন্য মটারসহ মালামাল এনে মটার স্থাপন করছিলেন। তবে, গ্রামের সাধারন মানুষ মানবতার ফেরিওয়ালা সুশান্ত কুমার মাহাতোর কাছে পানির পাম্প মটার স্থাপনের দাবি জানান।
এব্যাপারে তানোর বিএনপির আহবায়ক একরাম আলী মোল্লা বরেন, রোববার রোববার আকচা বানিয়া পাড়ায় গনসংযোগে গিয়ে মসজিদে নামাজ আদায় করতে গিয়ে পানির ব্যবস্থা নেই দেখে পানির পাম্প মটার স্থাপনের ব্যবস্থা করা হয়েছিলো।
এবিষয়ে তানোর পৌর নির্বাচনে আ’ লীগ দলীয় নৌকার মেয়র প্রার্থীর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবাক তানোর উপজেলা আ’ লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিবুল হাসান পাপুল সরকার বলেন, রোববার বিএনপির প্রার্থী নিজেই ওই গ্রামে গিয়ে আমাদের এক কর্মিকে লাঞ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, নির্বাচনের তোফসিল ঘোষনার পর মসজিদে পানির পাম্প মটার স্থাপন করাটা আচরন বিধি লংঘন। আমি প্রশাসনের নিরপেক্ষতা কামনা করছি। তিনি আরো বলেন, তানোর পৌর বাসী শান্তিপ্রিয় মানুষ আমরা কোন হানাহানি চাইনা শান্তি চাই।
তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও তানোন পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, নির্বাচনের তোফসিল ঘোষনার পর কোন প্রার্থী বা তার কর্মি সমর্থকরা কোন প্রকার প্রলোভন বা দান অনুদান দিতে পারবেন না। এটা নির্বাচনী আচরন লংঘনের মধ্যে পড়বে।
এখানে মেয়র প্রার্থীর পক্ষে এই পানির পাম্প (মটার) স্থাপন করা হচাছিলো। সুনির্দিষ্ট প্রমান ও খভিযোগের প্রেক্ষিতে মালামাল গুলো জব্দ করে আনা হয়েছে।
তিনি বলেন, নির্বাচনের তোফসির ঘোষনার পর কোন প্রার্থীর পক্ষে কোথাও কোন টিকনিক বা নগদ টাকাসহ উপঢৌকন দেয়া যাবে না। এমন অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, তানোর পৌর সভায় সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষে প্রশাসন তৎপর রয়েছে।