প্রচ্ছদ অন্যান্য পৃষ্ঠা তানোরে পৌরসভা আ’লীগের দখলে নিতে সুজনের বিকল্প নাই

তানোরে পৌরসভা আ’লীগের দখলে নিতে সুজনের বিকল্প নাই

261
0

সাইদ সাজু, তানোর (রাজশাহী) থেকে : রাজশাহীর তানোরে পৌর সভা আ’লীগের দখলে নিতে এবং উন্নত পৌর সভা গঠরে আবুল বাশার সুজনের বিকল্প নাই। ফলে, আগামী তানোর পৌরসভা নির্বাচনে ক্লিন ইমেজের অধিকারী জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা আবুল বাশার সুজনকে মেয়র পদে আ’লীগের দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবি তুলেছেন সচেতন নাগরিকসহ সাধারণ ভোটাররা। তবে, এক শ্রেনীর কিছু দলীয় পদপদবি ধারী নেতারা প্রকাশ্যে সুজনের বিরোধীতা না করলেও সুজনকে রহস্যজনক কারনে মেনে নিতে চাইছেন না।
সুজনকে মেনে নিতে না পারা পদপদবি ধারী ওই আ’লীগ নেতারা মেয়র পদে নির্বাচন করে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর কাছে পরাজিত হয়েছেন। কিন্তু তারপরও তাদের মধ্যে অনেকেই আবারো প্রার্থী হওয়ার স্বপ্নে বিভোর হয়ে সুজনকে সহযোগীতা না করে বিরোধীতা করছেন।
সচেতন মহলের অভিমত, তানোর পৌরসভায় সঠিক সময়ে সঠিক প্রার্থীকে আ’লীগ দলীয় মনোনয়ন দিতে না পারায় তানোর পৌর সভা এখনো বিএনপি’র দখলে রয়েছে। এবারো যদি সঠিক ব্যাক্তিকে আ’লীগ দলীয় প্রার্থীর মনোনয়ন দিতে না পারেন তাহলে এবারো বিএনপির দখল থেকে তানোর পৌরসভাকে উদ্ধার করতে পারবেন না আ’লীগ।
তানোর পৌরসভায় আ’লীগ সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে জনপ্রিয়তায় সবার শীর্ষে রয়েছেন ধর্নঢ্য পরিবারের উদীয়মান তরুন নেত্রীত্ব বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আবুল বাশার সুজন। তানোর পৌরসভায় আ’লীগের একাধীক নেতা নিজেদেরকে মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পাওয়ার প্রত্যাশা করে পোষ্টার ফেষ্টুন ব্যানার টাংগালেও মাঠে ঘাটে তাদের তেমন কোন কার্য্যক্রম নেই।
অপর দিকে আবুল বাশার সুজন দীর্ঘদিন থেকে মাঠে থাকার পাশাপাশি প্রায় প্রতিদিনই পাড়া-মহল্লা, হাট-বাজারসহ সর্বত্রই বিচরণ করার পাশাপাশি সভা সেমিনার উঠান বৈঠকসহ খেলা-ধুলার আয়োজন করাসহ বিভিন্ন মসজিদ মাদ্রসাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও দরিদ্র ব্যাক্তিদের দান অনুদান দিয়ে পৌর বাসীর আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। ফলে, পৌরবাসীর পছন্দের শীর্ষে রয়েছেন সুজন।
ভোটাররা বলছেন, দীর্ঘ ২৬ বছরে বেশ কয়েকজন মেয়র দেখলাম, কিন্তু কোন মেয়রই নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে পারেননি। পৌর এলাকার রাস্তাগুলো ভাঙ্গাচুরা অবস্থয়া পড়ে আছে দীর্ঘদিন ধরে, নেই কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা, পৌর এলাকার হাট-বাজার গুলোর অবস্থাও একেবারেই বেহাল অবস্থায় থাকলেও কোন উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। আ’লীগ দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় থাকলেও বিএনপি সমর্থিত মেয়র হওয়ার কারনে তানোর উপজেলার সদর তানোর পৌরসভায় দৃশ্যমান উন্নয়ন তো দুরের কথা নুন্যতম উন্নয়নও হয়নি।
ফলে, আগামী নির্বাচনে তানোর পৌরসভা আ’লীগের দখলে নিতে স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ ওমর ফারুক চৌধুরী গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরপরই রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানা আ’লীগ সহ-সভাপতি ধর্ন্যঢ্য পরিবারের ক্লিন ইজেমের সুনাম ধন্য ব্যবসায়ী উদীমান তরুন আ’লীগ নেতা আবুল বাশার সুজনকে তানোর পৌর সভায় আ’লীগের দলীয় মেয়র প্রার্থী ঘোষনা দিয়ে মাঠে নামান। সেই থেকেই আবুল বাশার সুজন মাঠে সভা সেমিনারসহ গনসংযোগ করে ভোটারদের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।
সচেতন নাগরিকরা বলছেন, আবুল বাশার সুজনের বাড়ি রাজশাহী শহরে হলেও তিনি দীর্ঘদিন ধরে তানোরের মানুষের সাথে নিবিড় সম্পর্কে জড়িয়ে আছেন। সুনামধন্য এই ব্যবসায়ীকে আমরা অনেক আগে থেকেই চিনি। তিনি একজন উদার মনের মানুষ। সুজনের জীবনে চাওয়া পাওয়ার আর কোন কিছুই বাকি নেই, তিনি অবহেলীত এই তানোর পৌরসভায় দৃশ্যমান উন্নয়নসহ ব্যাপক উন্নয়নের মাধ্যমে উন্নত পৌরসভা গঠন করে তানোর বাসীর হৃদয়ে অমর হয়ে থাকতে চান।
ফলে, দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির দখল থাকা তানোর পৌরসভাকে উদ্ধার করে আ’লীগের দখলে নিতে এবং অবহেলীত এই পৌরসভার উন্নয়নে আবুল বাশারের কোন বিকল্প নাই।